First Meet – বর/কনে দেখা

এখনও অনেকে জীবনসঙ্গী খোঁজার বিষয়টি অভিভাবকের ওপরই ছেড়ে দেন। কিন্তু তার পরও ছেলের মেয়ে দেখা পর্বটা অনেক সময় হয়ে থাকে। এ পর্বটি কোনো রেস্টুরেন্ট, পার্ক কিংবা কোনো বন্ধু অথবা আত্মীয়ের বাসায়।

যেহেতু এটি অ্যারেঞ্জ ম্যারেজ, তাই তাদের বন্ধুবান্ধব অথবা আত্মীয়স্বজন কেউই পরিচিত থাকেন না। তাই প্রথম দেখার সময় একটি ছেলে এবং একটি মেয়ের অনেক কিছুু খেয়াল রাখতে হবে। কারণ এই একটুখানি সময়ে দুটি মানুষ এবং দুটি পরিবারের প্রতি অনেক নেতিবাচক মনোভাব তৈরি হতে পারে একটু ভুলের কারণে।

কোনো স্থানে পরিবারসহ দেখতে গেলে : শুধু যে ছেলেমেয়ে দেখা করে তা নয়, সঙ্গে অনেক মুরবি্বও থাকেন। তারাও অনেক কিছু খেয়াল করেন এবং পরে মত প্রকাশ করেন। তাই ছেলেমেয়ে উভয়কেই খেয়াল রাখতে হবে, তারা যেন কোনো অসম্মানবোধ না করেন। তাদের ওপর যথেষ্ট সম্মান এবং শ্রদ্ধা রেখেই প্রতিটি কথা এবং বাক্য প্রয়োগ করতে হবে।
কর্মক্ষেত্রে দেখতে গেলে : এখন অনেকেই ব্যস্ত এবং সময়ের অভাবে ছেলেমেয়েরা কর্মক্ষেত্রে গিয়ে দেখা করেন। এতে দেখাও হয়, আবার পরিবেশ সম্পর্কে ধারণাও পাওয়া যায়। এ সময় খেয়াল রাখতে হবে, কেউ যেন অপ্রীতিকর অবস্থা এবং কথাবার্তার শিকার না হয়।
শুধু পাত্র-পাত্রীর দেখা : অনেকে ভাবে, তাদের নিজেদের বোঝাপড়াটা ভালো হওয়ার জন্য শুধু ছেলে আর মেয়ের দেখা হওয়া দরকার। তাই এ সময় দু’জনকেই বেশ বন্ধুত্বপূর্ণ আচরণ করতে হবে। নিজের জানার জন্য কোনো জড়তা রাখা ঠিক হবে না। অথবা কোনো মিথ্যা তথ্য দেওয়া থেকেও বিরত থাকতে হবে। নিজের ভালো লাগা-মন্দ লাগাটা জানানোর সঙ্গে সঙ্গে অন্যেরটাও জেনে নিতে হবে।
বন্ধুবান্ধবসহ : অনেক সময় দেখা যায়, ক্লাসমেট অথবা অফিসের সহকর্মীকে নিয়ে কোনো এক আড্ডার মাধ্যমে পাত্র-পাত্রীর প্রথম দেখাটা সেরে নেওয়া যায়। সে ক্ষেত্রে লক্ষ্য রাখতে হবে, তাদের আচরণে কেউ যেন বিরক্ত না হয়। যেহেতু সবার একসঙ্গে আড্ডা চলে, তাই হাসি-ঠাট্টার মধ্য দিয়েই ছোটখাটো বিষয়গুলো জানার চেষ্টা করতে হবে।

যেহেতু এটি সবকিছু তৈরি হওয়ার প্রথম ধাপ, তাই এ সময়টুকু একটু সচেতন থাকলেই শুয়োপোকা প্রজাপতিতে পরিণত হবে, সময় লাগবে না। ইতিবাচক ফল পাওয়ার আশায় ফেক কোনো কিছুই করা উচিত নয়।

Comments

comments